বিশ্বকাপের ‘সাকিবনামা’…

0

ক্রিকেট বিশ্বকাপে ২৯ ম্যাচের ক্যারিয়ারে ৪৫ গড়ে ১১৪৬ রান। ২টি শতক, ১০ অর্ধশতক; সর্বোচ্চ ১২৪*। চার ১০৭, ছয় ৮টি। ৩৫ গড়ে ৩৪ উইকেট। সেরা ফিগার ৫/২৯। ফিল্ডার সাকিবের ৮ ক্যাচ।

১১৪৬ রান করে সাকিব বিশ্বকাপ ইতিহাসের নবম সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। ৩৪ উইকেট নিয়ে যৌথভাবে ১৬তম সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি। বিশ্বকাপে সাকিবের চেয়ে বেশি উইকেট রয়েছে মাত্র তিনজন স্পিনারের।

২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপে সাকিবের ৮ ম্যাচে ৮৬ গড়ে ৬০৬ রান। এখন অবধি যা সর্বোচ্চ। ২টি শতক, ৫টি অর্ধশতক, ৬০ চার, ২টি ছয়। সর্বোচ্চ ১২৪*। বল হাতে ৩৬ গড়ে ১১ উইকেট সেরা ৫/২৯। ফিল্ডার সাকিবের ৩ ক্যাচ।

সাকিব বিশ্বকাপ ইতিহাসের একমাত্র ক্রিকেটার যার বিশ্বকাপে ১১০০ রান ও ৩০ উইকেট রয়েছে। সাকিবের এই কীর্তিটা অনন্য। সাকিব ছাড়া অন্য কারো ৩০ উইকেটের সাথে ৭০০ রানও নেই। সাকিব যেখানে সবাইকে ছাপিয়ে গিয়েছে।

সাকিব ক্রিকেট ইতিহাসের একমাত্র অলরাউন্ডার যে নির্দিষ্ট এক বিশ্বকাপে ৬০০+ রান ও ১০+ উইকেট নিয়েছে। সাকিব ছাড়া অন্য কারো ৪০০ রান, ১০ উইকেটও নেই।

সাকিব বিশ্বকাপ ইতিহাসের একমাত্র ব্যাটসম্যান যে বিশ্বকাপ ইতিহাসে টানা আট ইনিংসে ৪০+ রানের ইনিংস খেলেছে।

নির্দিষ্ট এক ক্রিকেট বিশ্বকাপে ৬০০+ রান করা তৃতীয় ব্যাটসম্যান সাকিব।

ক্রিকেট বিশ্বকাপে সাকিব পঞ্চাশোর্ধ রানের ইনিংস ১২টি। সাকিবের সামনে শুধু শচীন।

নির্দিষ্ট এক বিশ্বকাপে সর্বাধিক পঞ্চাশোর্ধ ইনিংস খেলেছে সাকিব ৭বার। শচীনও সমান ৭বার, তবে খেলেছে ৩টি ইনিংস বেশি।

প্রথম বাংলাদেশি বোলার হিসেবে বিশ্বকাপে পাঁচ উইকেট শিকার সাকিবের।

যুবরাজ সিংয়ের পর দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে বিশ্বকাপে একই ম্যাচে ৫০ রান ও ৫ উইকেটের কৃতিত্ব সাকিবের।

বিশ্বকাপে দুটি শতক করা ও দুবার চার বা এর অধিক উইকেট নেওয়া একমাত্র ক্রিকেটার সাকিব।

বিশ্বকাপে সর্বাধিকবার একই ম্যাচে ৫০+ রান ও ২+ উইকেট নিয়েছে সাকিব ৪বার, যুবরাজও সমান ৪বার।

ক্রিকেট বিশ্বকাপে সাকিব বল করেছে ১৪৩৩টি; এরমধ্যে ডট দিয়েছে ৬৭৯ বল। বিশ্বকাপ ইতিহাসে সাকিবের চেয়ে বেশি বল ডট দিয়েছে মাত্র দুজন বোলার।

মঞ্চ প্রস্তুত ছিল, মহানায়ক এসে শুধু সবাইকে ছাপিয়ে গেলেন…

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here