তিনি শিল্পি নন, তার চেয়েও বেশি কিছু!

1
ছবিঃ সংগ্রহীত

বাংলা গান এক আবেশীয় ভালো লাগার অধ্যায়। যাদের স্বর বেয়ে এই ভালো লাগা গুলো বাতাস আউড়ে সুরে সুরে কানে ধ্বনীত হয় তাদের মধ্যে এক অনবদ্য নাম জেমস। নগরবাউলের এই লিড গিটারিস্ট ভোকালের কন্ঠে সারা বাংলা উল্লাসে মাততে জানে।
আমি ভিন্ন ঘরানার শ্রোতা। গানের সুরে-স্বরে মাতি আর মুগ্ধ হই এর পেছনের শিল্পীর, যিনি থেকে যান গৌণ প্রচারিত।

সময়টা আমার শৈশবের। মিরা বাঈ গানটা তুমুল জনপ্রিয়তায় ছেড়ে যায়। আমি অনেক ছোট তখন, ইলেক্ট্রিক গিটারের আওয়াজ থেকে লিরিক্স আলাদা করতে পারতাম না ততছোট। দরবার নাচায়!! মিরা বাঈ!! হেইলা দুইলা!! ঐ অতটুকুই বুঝতাম।

বড় হলাম। মাটি হব মাটি হব গানটা গেয়ে খ্যাতি পাওয়া রুমি একটা নাটক করলো। “জীবন থেকে নেয়া” এই নাটকটাকে মনে হলো লাইট ক্যামেরা অ্যাকশন আর ফিক্সন থেকে আলাদা ধাচের একটা গল্প। হুবহু ঘটে যাওয়া হাজারো স্বপ্নালু বেকারের হেরে যাওয়া আর পুনরুথানের গল্প। একি ধাচের আরেকটা গল্পে লাস্যময়ী জয়া আহসানের নাটক। “বাবা বাবা লাগছে” এখানটাতে পেলাম হেরে যাওয়া এক প্রেমিকের উপরি আহ্লাদের বাস্তব ঘরানার গল্প। সেম টু সেম ‘পিপড়াবিদ্যার’ ফিল এটা। এংগেজম্যান্ট নামে আরো একটা নাটকে সেই একই ফিল দিয়ে গেল।

গ্ল্যামারল্যাস, হাস্যরসবিহীন এমনকি কোন ধরনের রোমাঞ্চকর গল্প না হওয়া সত্ত্বেও এই নাটকগুলোর গল্প আমি আজও ভুলতে পারছি নাহ। তার একটাই কারণ!
গল্পগুলো সব নিজের মনে হয়েছে। আর আমার গল্প উপস্থাপন করে দেয়া সেই মানুষটার নাম মারজুক রাসেল।
অভিনেতা, গীতিকার, গল্পকার, গায়ক, নায়ক, লেখক হেন কোন শৈল্পিকতা নাই এই ভদ্রলোকের আয়ত্তের বাইরে।

জেমসের হিট গান, পেছনের মানুষ মারজুক রাসেল।
মোশাররফের হিট নাটক, পেছনের মানুষ মারজুক রাসেল।
আসিফ হিট, এলআরবি হিট, পেছনের মানুষ মারজুক রাসেল।

কথা সাহিত্যিক মারজুক রাসেলকে নিয়ে বলার আগে এসব নিয়ে বলে শেষ করা যাচ্ছে না। যার কলমে ট্রেন্ড উঠে আসে তিনি শিল্পি নন তার চেয়েও বেশি কিছু।

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here